আজ [bangla_date], [english_date]

খেলোয়াড়দের দুই দিনের বিশ্রাম দিয়েছেন ক্লপ

নিজস্ব প্রতিবেদক :  উল্ফসের বিপক্ষে ৩-০ গোলের হতাশাজনক পরাজয়ের পর দলের ফর্মহীনতায় ভুগতে থাকা খেলোয়াড়দের দুইদিনের বিশ্রাম দিয়েছেন লিভারপুল বস জার্গেন ক্লপ। শেষ চারটি প্রিমিয়ার লিগে এটি লিভারপুলের তৃতীয় পরাজয় ছিল। এমনিতেই লিভারপুলের শুরুটা ভাল হয়নি। তার উপর টেবিলের নীচের দিকে থাকা উল্ফসের বিপক্ষে বড় এই পরাজয় দলকে অনেকটাই পিছিয়ে দিয়েছে। বর্তমানে প্রিমিয়ার লিগ টেবিলের ১০ম স্থানে রয়েছে অল রেডরা। শীর্ষ চারে থেকে মৌসুম শেষ করার মাধ্যমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগে খেলার যোগ্যতা অর্জন করার আশাও ক্রমেই ফিকে হয়ে আসছে।

হতাশাগ্রস্ত রেডস বস ক্লপ বলেছেন তার খেলোয়াড়দের মধ্যে গড়পড়তা মানসিকতা তিনি লক্ষ্য করছেন। এ কারনেই তাদেরকে বিশ্রামে রাখাটা সমীচীন মনে হয়েছে। এর মাধ্যমে তারা নিজেদের স্বাভাবিক সময়টা থেকে বেরিয়ে কিছুটা হলেও মানসিক স্বস্তিতে থাকবে। সোমবার এভারটনের বিরুদ্ধে মার্সিসাইড ডার্বির আগে লিভারপুলের আর কোন খেলা নেই। এ কারনেই এই বিশ্রাসের সিদ্ধান্ত। এ সম্পর্কে ক্লপ বলেন, জার্মানী হলে এই প্রশ্নটা আরো আগেই আসতো, কিভাবে তুমি এই ধরনের পরিস্থিতিতে খেলোয়াড়দের দুইদিনের বিশ্রাম দিতে পারলে। কিন্তু খেলোয়াড়দের প্রতিদিনের অনুশীলনটা জরুরী। আমরা উলভারহ্যাম্পটনে সত্যিই বাজে খেলেছি।

তিনি আরো বলেন, পরের দিন ম্যাচের পারফরমেন্স নিয়ে একে অন্যের সাথে আলোচনা করেছি। এরপরই তাদের দুইদিনের বিশ্রামের সিদ্ধান্ত নেই। কারন শনিবার থেকে সোমবার অনেক লম্বা সময়। কিন্তু রোববার তাদের জন্য অনুশীলন রেখেছি, পরের দিন এভারটনে খেলতে যাবো। আশা করছি এই বিশ্রামটা তাদেরকে ফিরে আসতে সহযোগিতা করবে। আবার এটাও জানি এই ধরনের বিশ্রামে হয়তো তাদের সমস্যা হতে পারে, তারা ইনজুরিতে পড়তে পারে। ক্লপ জানিয়েছেন তার সিদ্ধান্ত একদিক থেকে খেলোয়াড়দের মানসিক শক্তি ফিরিয়ে আনতেও সহায়তা করবে। গত কয়েকদিন ব্রাইটনের কাছ দুটি ম্যাচে পরাজিত হয়েছে লিভারপুল। এর মধ্যে একটি প্রিমিয়ার লিগে, অন্যটি এফএ কাপে। একইসাথে ব্রেন্টফোর্ডের সাথেও এ বছরের শুরুতেই বড় পরাজয়ের স্বাদ পেয়েছে।

ক্লপ বলেন, এটা সত্যিই খেলোয়াড়দের সহযোগিতা করবে। রোববার পরাজয়ের পর আমি যে মানসিকতা নিয়ে মাঠ ছেড়েছিলাম তা থেকে সতেজ একটি মনোভাব নিয়ে আবারো মাঠে ফিরছি। এই ধরনের পরিস্থিতিতে আমি কাজ করেছি। এসময় আমার কাছে অনেক ফোনকল এসেছে। কিন্তু আমি নতুন একটি মনোভাব নিয়ে মাঠে ফিরে এসেছি যা সম্পূর্ণ ভিন্ন ছিল। এ সপ্তাহে প্রতিটি খেলোয়াড়ই ইতিবাচক মনোভাব নিয়ে খেলতে আসবে। এটাই বাস্তবতা। অনুশীলন সেশনও খুবই কঠিন ছিল। এভারটনের বিরুদ্ধে ম্যাচে কোমরের ইনজুরিতে থাকা মিডফিল্ডার থিয়াগো আলচানতারার খেলা নিয়ে শঙ্কা রয়েছে। কাফ ইনজুরি কাটিয়ে অনুশীলনে ফিরেছেন ফরোয়ার্ড দিয়োগো জোতা। অক্টোবরের পর থেকে তিনি সাইডলাইনে ছিলেন।

Comments are closed.

     More News Of This Category

follow us on facebook page