আজ [bangla_date], [english_date]

আমরা একে অপরের ধর্মকে শ্রদ্ধা করবো : শিক্ষা উপমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক :  শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল বলেছেন, আমরা একে অপরের ধর্মকে শ্রদ্ধা করবো, একে অপরের উৎসবে শামিল হবো। ধর্মতত্ত্বের দিক থেকে এই ঐক্য ধরে রাখতে হবে। তিনি বলেন, সকল ধর্মের মধ্যে যে সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশ-এটা দেশের গণতন্ত্র, সমাজ, রাজনীতি, অর্থনীতি-সবকিছুর পূর্বশর্ত। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ সরকার অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়তে বদ্ধপরিকর। বঙ্গবন্ধু কন্যার হাতেই বাংলাদেশ নিরাপদ। প্রত্যেক ধর্মের প্রতি তাঁর রয়েছে অগাধ আস্থা-শ্রদ্ধা। আজ শনিবার সকালে চট্টগ্রামের নন্দনকানন তুলসীধাম ও অদ্বৈত-অচ্যুত ধামের মোহন্ত শ্রীমৎ দেবদীপ পুরী মহারাজের পৌরহিত্যে চারদিনব্যাপী ভগবান শ্রীকৃষ্ণের রাসলীলা উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। অনুষ্ঠানে সংবর্ধেয় অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান এটিএম পেয়ারুল ইসলাম।

শিক্ষা উপমন্ত্রী বলেন, এই আন্তধর্মীয় সৌহার্দ্যপূণ সম্পর্কের ঐতিহ্য সমুন্নত রাখতে হবে। ধর্মে আধ্যাত্মিক যে বিষয়টি আছে, সেখানে সকল ধর্মীয় সম্মিলন ঘটেছে। এই সম্মিলনের স্থান হচ্ছে স্রষ্টার প্রতি সর্বোচ্চ আস্থা। স্রষ্টার সাথে মানবাত্মার যে সম্মিলন এবং এর মাধ্যমে মানুষের মধ্যে যে পবিত্র সম্পর্ক সৃষ্টি হয়, সেটাকে গুরুত্ব দিতে হবে। স্রষ্টার ওপর নির্ভার হয়ে সবকিছু সমর্পণ করতে পারলে সব দুঃখ-কষ্ট থেকে মুক্তি মিলবে, মোক্ষলাভ হবে। চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের নব-নির্বাচিত চেয়ারম্যান এটিএম পেয়ারুল ইসলাম বলেন, রাস হচ্ছে ভক্ত এবং ভগবানের মিলন উৎসব। জীবাত্মার সাথে পরমাত্মার মিলন। ধর্ম নিয়ে যারা বাড়াবাড়ি করেছে, তারা ধ্বংস হয়ে গেছে। সব ধর্মের প্রতি শ্রদ্ধা করাই আমাদের মূল শিক্ষা। জাতির জনকের সংবিধানের মূল নীতির একটি ছিল- ধর্ম নিরপেক্ষতা।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ নেতা ডা. আ ম ম মিনহাজুর রহমান, চসিক কাউন্সিলর জহরলাল হাজারী, শৈবাল দাশ সুমন, নুর মোস্তফা টিনু ও রুমকী সেনগুপ্তা। অনুপম দেবনাথ পাভেলের সঞ্চালনায় আনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন যোগেশ্বর চৌধুরী, ইন্দিরা ঘোষ, লায়ন ডা. দুলাল দাশ, তুলসীধাম পরিচালনা পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক স্বপন চৌধুরী, রাসলীলা উৎসব উদযাপন পরিষদের সভাপতি সোনারাম ধর, সাধারণ সম্পাদক হরিশংকর ধর প্রমুখ। এদিন তুলসীধামে পূজার্চনা, অমিত সেনগুপ্ত ও সনাতন দাশের গীতাপাঠ, অদ্বৈত-অচ্যুত শিল্পীগোষ্ঠীর পরিবেশনায় ভজন, গীতিআলেখ্য ‘শ্রীশ্রী দশমহাবিদ্যা’, প্রবীণ ভক্ত সংবর্ধনা ও বিনামূল্যে চিকিৎসাসেবার আয়োজন করা হয়। রাসযাত্রা উৎসব উপলক্ষে প্রকাশিত ‘তপোবন’ ম্যাগাজিনের মোড়ক উন্মোচন শেষে অতিথিরা তুলসীধামের উন্নয়নে সম্পৃক্ত গুণীজন ও প্রয়াতদের পরিবারকে সংবর্ধনা স্মারক প্রদান করেন ।

Comments are closed.

     More News Of This Category

follow us on facebook page